শনিবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মোহনপুরের পান চাষীদের দুর্দশা

মোহনপুর প্রতিবেদক   |   বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১ | প্রিন্ট

মোহনপুরের পান চাষীদের দুর্দশা

লকডাউনে ক্রেতার অভাবে পান বিক্রি করতেপারছেন না পান চাষিরা

-প্রতিনিধি

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে প্রশাসনের নির্দেশে রাজশাহীর মোহনপুরে চলছে কঠোর লকডাউন। বন্ধ রয়েছে গণপিরবহন। ফলে পাইকার না আসতে পারায় পান বিক্রয় করা নিয়ে বিপাকের মধ্যে পড়েছেন চাষিরা। ক্রেতা না থাকায় কম দামে পান বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন চাষিরা।

জানা যায়, রাজশাহীর মোহনপুর পান চাষের জন্য আগে থেকে বিখ্যাত। পান চাষ লাভজনক হওয়ায় দিন দিন বৃদ্ধি হচ্ছে পান বরজ। কৃষি অফিসের তথ্যমতে, মোহনপুর উপজেলায় ১ হাজার ১ শত ৮০ হেক্টর জমিতে পান বরজ রয়েছে। পান বরজের সংখ্যা ১৪ হাজার ৪ শত। দেখতে ও স্বাদে ভালো হওয়ায় এই এলাকার পানের চাহিদা বেশি। তাই দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ হয়ে থাকে এখানকার পান। প্রতিদিনই উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে বসে পানের হাট। এসব হাট-বাজারে পান নিয়ে যান চাষিরা। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে পাইকাররাও আসেন পান কিনতে। কিন্তু বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে পাইকারী ব্যবসায়ীরা না আসতে পারায় পান বিক্রির পর উৎপাদনের খরচ নিয়ে দুঃচিন্তা করছেন চাষীরা।

সরজমিনে  বুধবার দুপুরে মোহনপুরের পানের বড় হাঁট একদিলতলায় গিয়ে দেখা যায়, অতি যত্নে পান সাজিয়ে ভ্যান যোগে আবার কেউ মাথায় করে এনে হাঁটে বসছেন বিক্রয়ের আশায়। দূরগামী ক্রেতাদের তেমন দেখা নেই হাঁটের মাঝে। এসুযোগে কম দাম দিয়ে পান কিনছেন ক্রেতারা। তবে তারাও দুঃচিন্তা করছেন সরবারাহ নিয়ে। আর চাষিদের বিক্রয়ের টাকা দিয়ে পরিশোধের চিন্তা করছেন কীটনাশকের মূল্য।
পান চাষি সোলেমান, হবিবুর, হোসেন আলীসহ কয়েকজন বলেন, এই এলাকার মানুষের মূল পেশা পান চাষ। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির কারণে আমরা সংকটের মধ্যে রয়েছি। মৌসুম শেষ হওয়ায় পান বরজে রাখতেও পারছি না, রাখলে পান মোটা হয়ে যাচ্ছে, নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আবার হাঁট-বাজারে পানের দাম খুব কম। ফলে পান বিক্রিও করতে পারছি না। এতে করে উৎপাদন খরচই উঠছে না। ফলে বরজে যেসব শ্রমিক কাজ করছে, তাদের মজুরিও ঠিকমতো দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

মোহনপুর উপজেলা কৃষি অফিসার রহিমা খাতুন জানান, অন্যান্য ফসলের তুলনায় লাভজনক হওয়ায় উপজেলায় পানের আবাদ দিন দিন বাড়ছে। দাম কম থাকলেও পানের বর্তমান অবস্থা ভালো, কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে পানের বিভিন্ন সমস্যা নিরসনে কৃষকদের সব ধরনের পরামর্শ প্রদান করা হয়। দেশের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়া মাত্রই সফলতার দোয়ারে পৌঁছে যাবে মোহনপুরের পান চাষীরা।

উত্তরা প্রতিদিন/ আমিনুল

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৮:৫৩ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১

uttaraprotidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
আব্দুল্লাহ্ আল মাহমুদ বাবলু সম্পাদক
এনায়েত করিম প্রধান বার্তা সম্পাদক
প্রধান কার্যালয়

৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২

ফোন: ০৭২১-৭৬০১৪৩, ০১৯৭৭১০০০২৭

E-mail: uttaraprotidin@gmail.com