রবিবার ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

লকডাউনের ঘোষণায় রাজশাহী নগরে উপচেপড়া ভিড়

উত্তরা প্রতিবেদক   |   শুক্রবার, ১১ জুন ২০২১ | প্রিন্ট

লকডাউনের ঘোষণায় রাজশাহী নগরে উপচেপড়া ভিড়

রাজশাহী নগরের সিটি করপোরেশন এলাকায় শুক্রবার বিকেল পাঁচটা থেকে সর্বাত্মক লকডাউন শুরু হয়েছে। এর আগে সকালে সাহেববাজার কাঁচাবাজারে মানুষের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। মনিচত্বর মাস্টারপাড়া থেকে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তোলা ছবি

রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকায় শুক্রবার বিকেল ৫টা থেকে সর্বাত্মক লকডাউন শুরু হয়েছে। এটি চলবে ১৭ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত। এই ৭ দিনের খাবার, ওষুধসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে রাজশাহীর মানুষ বাজারে ভিড় জমিয়েছেন।

শুক্রবার সকাল থেকেই নগরের বিভিন্ন বাজারে এই ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। সঙ্গে বেড়েছে যানবাহনের চলাচলও।

এর আগে বৃহস্পতিবার জেলা সার্কিট হাউসে রাত ৯টা থেকে পৌনে ১০টা পর্যন্ত রাজশাহীর করোনা পরিস্থিতি নিয়ে এক জরুরি সভা হয়। এরপর রাজশাহীতে ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ দেওয়ার ঘোষণা দেন বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবীর।

ঘোষণা অনুযায়ী, এই সাত দিন নগরে ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকানপাট বাদে সব ধরনের দোকানপাট বন্ধ থাকবে। রাস্তায় চলবে না জরুরি সেবার গাড়ি বাদে কোনো ধরনের যানবাহন।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, শুক্রবার বিকেল ৫টার মধ্যে মানুষ যাতে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে পারেন, এ কারণে সর্বাত্মক লকডাউন বিকেল ৫টা থেকে শুরু হবে।

গতকাল শুক্রবার সকাল থেকেই রাস্তায় যান চলাচল ছিল। নগরের সাহেববাজার এলাকায় অটোরিকশার জটও ছিল। শুক্রবার সাধারণত এ ধরনের ভিড় থাকে না। সবচেয়ে ভিড় ছিল নগরের মাস্টারপাড়া কাঁচাবাজারে। সেখানে লোকজন কোনো ধরনের স্বাস্থ্যবিধি না মেনে গা ঘেঁষাঘেঁষি করে কাঁচাবাজার থেকে মালামাল কিনেছেন। সাহেবাজারের মুদিদোকান, মাংসের দোকানেও ভিড় ছিল।

সাহেববাজার এলাকার কাঁচাবাজার ব্যবসায়ী জনি ইসলাম বলেন, আজ (শুক্রবার) সকাল থেকেই মানুষ বেশি বেশি কিনছেন। তাঁদের বলা হচ্ছে, লকডাউনেও কাঁচাবাজার খোলা থাকবে। কিন্তু তাঁরা বেশি বেশিই সবকিছু কিনছেন।

নগরের কুমারপাড়া এলাকায় একটি সেলুনের সামনে বেশ ভিড় দেখা গেছে। সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা লোকজন বলেন, আগামী এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করা হচ্ছে। এটি শুধু এক সপ্তাহ না। এটা আরও বাড়তে পারে। তাই তাঁরা চুল-দাড়ি কামাতে এসেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, লকডাউনের খবর শুনে লোকজন গতকাল শুক্রবার একটু বেশি কেনাকাটা করেন। এ কারণে নগরে সকাল থেকেই অন্যদিনের চেয়ে বেশি ভিড় ছিল। তবে বিকেল পাঁচটার পর থেকে প্রশাসনের তৎপরতায় দোকানপাট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ভিড় কমতে শুরু করে। তবে পরিবহন কমে যাওয়ায় অসংখ্য লোকজনকে দীর্ঘ পথ হেটে গন্তব্যে পৌঁছাতে দেখা গেছে।

উত্তরা প্রতিদিন/একে

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১১:৫২ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১১ জুন ২০২১

uttaraprotidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
এনায়েত করিম সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত)
প্রধান কার্যালয়

৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২

ফোন: ০৭২১-৭৬০১৪৩, ০১৯৭৭১০০০২৭

E-mail: uttaraprotidin@gmail.com