রবিবার ১৩ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কালো-সাদা ছত্রাকের পর ভারতে এবার হলুদ ছত্রাক সংক্রমণ

বিদেশ ডেস্ক   |   মঙ্গলবার, ২৫ মে ২০২১ | প্রিন্ট

কালো-সাদা ছত্রাকের পর ভারতে এবার হলুদ ছত্রাক সংক্রমণ

ভারতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তিদের দেহে প্রাণঘাতী কালো ও সাদা ছত্রাক সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার উদ্বেগের মধ্যেই এবার সেখানে এক ব্যক্তির শরীরে শনাক্ত হয়েছে ‘ইয়েলো’ ফাঙ্গাস বা হলুদ ছত্রাক।

‘দ্য ইনডিপেনডেন্ট’ পত্রিকার খবরে বলা হয়, উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক ব্যক্তির দেহে হলুদ ছত্রাক সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে।

হাসপাতালের নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ ডা. বিপি ত্যাগী এএনআই-কে বলেন, ৪৫ বছরের ওই ব্যক্তি একজন পুরুষ। তার দেহে কালো, সাদা এবং হলুদ তিন ধরনের ছত্রাকের সংক্রমণ পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, ‘‘সাধারণত সরীসৃপের দেহে হলুদ ছত্রাকের সংক্রমণ দেখা যায়। আমি এই প্রথম কোনও মানুষের দেখে এই ছত্রাকের সংক্রমণ দেখতে পেলাম।

কালো ও সাদা ছত্রাকের তুলনায় হলুদ ছত্রাকের চিকিৎসায় অধিক সময় লাগে। অ্যামফোটেরিসিন বি ওষুধ দিয়ে এর চিকিৎসা করা হয় বলেও জানান এই চিকিৎসক।

হলুদ ছত্রাকে আক্রান্ত হলে শরীরে যেসব উপসর্গ দেখা দেয় তার মধ্যে দুর্বল বোধ হওয়া এবং ক্ষুধামন্দা অন্যতম।

যে ব্যক্তির দেহে হলুদ ছত্রাকের সংক্রমণ পাওয়া গেছে তার ছেলে আইএএনএসকে বলেন, তার বাবা কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিয়েছিলেন এবং ভালোভাবেই সুস্থ হয়ে ওঠেন।

“কিন্তু গত দুই/তিন দিন ধরে তার চোখ ফুলে উঠতে শুরু করে এবং হঠাৎ করে তিনি আর দুই চোখ খুলতেই পারছিলেন না। তার নাক দিয়েও রক্ত পড়ছিল এবং তিনি মূত্র ধরে রাখতে পারছিলেন না।”

করোনভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারতে নতুন উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল কালো ছত্রাক সংক্রমণ। এই কালো ছত্রাক সামাল দেওয়া নিয়ে তৎপরতা চলার মধ্যেই খবর আসে হোয়াইট ফাঙ্গাস বা সাদা ছত্রাক সংক্রমণের। আর এবার এল হলুদ ছত্রাক সংক্রমণের খবর।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, ভারতে পাঁচ হাজার ৪২৪ জনের দেহে কালো ছত্রাক বা মিউকরমাইকোসিসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। তাদের মধ্যে চার হাজার ৫৫৬ জন কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছিলেন বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্শ বর্ধন।

যদিও এর আগে কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে ভারতে ৮ হাজার ৮০০র বেশি মানুষের দেহে প্রাণঘাতী ‘কালো ছত্রাক’ বা মিউকরমাইকোসিসের সংক্রমণ ধরা পড়ার খবর প্রকাশ পেয়েছিল।

দেশটিতে এরই মধ্যে ছত্রাক বিরোধী ‍ওষুধ অ্যামফোটেরিসিন বি’র অভাব দেখা দিয়েছে।

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, যারা ডায়বেটিসে ভুগছেন বা অন্য কোনো কারণে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তাদের এবং কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার পর স্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ দিয়ে চিকিৎসার কারণে মিউকরমাইকোসিসে আক্রান্ত হওয়ার অধিক ঝুঁকিতে থাকেন।

ভারতের বিহার ও মধ্য প্রদেশে অনেকে সাদা ছত্রাক আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কালো ছত্রাকের মত একই কারণে মানুষ সাদা ছত্রাকে সংক্রমিত হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

উত্তরা প্রতিদিন/একে

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৬:৫৩ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৫ মে ২০২১

uttaraprotidin.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
আব্দুল্লাহ্ আল মাহমুদ বাবলু সম্পাদক
এনায়েত করিম প্রধান বার্তা সম্পাদক
প্রধান কার্যালয়

৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২

ফোন: ০৭২১-৭৬০১৪৩, ০১৯৭৭১০০০২৭

E-mail: uttaraprotidin@gmail.com